Bangladesh
বাংলাদেশ এগিয়ে চলেছে ডিজিটাল দেশ গড়বার পথে, প্রকল্পগুলি বাস্তব করবার চেষ্টা করছে সরকার

27 Nov 2017

#

ঢাকা, নভেম্বর ২৬ঃ বাংলাদেশ অ্যাজ আসতে আসতে এগিয়ে চলেছে ডিজিটাল বাংলাদেশের নির্মাণের পথে।
অ্যাজ ডিজিটাল জীবন প্রত্যেক দেশের এক অঙ্গ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

বাংলাদেশ তাদের থেকে পিছিয়ে নেই।

সরকার সকল প্রকারের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে দেশের ডিজিটাল দুনিয়ার উন্নতি আনবার জন্য।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক কিছুদিন আগে বলেছেন যে ওনার সরকার আগামী ২০২১ সালের মধ্যে দেশে শতভাগ ইন্টরনেট সংযোগ এবং ৫০ শতাংশ মানুষকে ব্রডব্যান্ড সংযোগের আওতায় আনবার জন্য কাজ করে
চলেছে।

ভারতের রাজধানী নিউ দিল্লীতে গ্লোবাল সাইবার স্পেস কনফারেন্সে ‘ব্রিজিং দ্য ডিজিটাল ডিভাইড-এমপাওয়ারিং বাই টেকনোলজি লেড ইনক্লুসিভনেস’ শীর্ষক প্লেনারি সেশনের নিজের বক্তব্য রাখার সময় মন্ত্রী এই কথাগুলি বলেছেন।



মন্ত্রী বলেছেনঃ "ডিজিটাল বাংলাদেশ ঘোষণার পর থেকে প্রধানমন্ত্রীর সুদক্ষ নেতৃত্বে ও প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টার নির্দেশনায় বাংলাগভনেট, ইনফো সরকার-২ প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হয়েছে এবং ইনফো সরকার-৩ প্রকল্প বস্তবায়িত হচ্ছে।”



উনি আরও বলেনঃ "২০২১ সালের মধ্যে সারা দেশকে শতভাগ ইন্টরনেট সংযোগ এবং ৫০ শতাংশ মানুষকে ব্রডব্যান্ড সংযোগের আওতায় নিয়ে আসতে কাজ করছি।”



নিজের সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপের বিষয়টি তুলে ধরে মন্ত্রী বলেন যে ২০২১ সালের মধ্যে হার্ডওয়্যার, সফটওয়্যার এবং গবেষণা ও উন্নয়ন খাত থেকে সুনির্দিষ্টভাবে ৫ বিলিয়ন ডলার আয় করতে সক্ষম হবে।


এই দেশের নবনির্মাণের কান্ডারি হলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।


উনি বাংলাদেশকে নতুন রূপে গড়বার চেষ্টা করছেন।


ওনার ম্নের চোখে যে উন্নত বাংলাদেশের স্বপ্ন আছে সেই অনুযায়ী দেশকে গরছেন হাসিনা ও ওনার সরকার।


প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন যে বাংলাদেশ হবে অর্থনৈতিক মুক্তির ও সমৃদ্ধির একটি দেশ।

ওনার সরকারের হাত ধরে বাংলাদেশের উন্নতির কথা তুলে ধরে, হাসিনা বলেনঃ "বিশ্বে এখন আমরা উন্নয়নের রোল মডেল। শিগগিরই এই জাতি অর্থনৈতিক মুক্তি পাবে। ২০২১ সালে এ দেশ মধ্যম আয়ের দেশ হবে, ২০৪১ সালে বাংলাদেশ হবে উন্নত সমৃদ্ধশালী দেশ।"


বাংলাদেশের সরকার উন্নয়ন করবার চেষ্টা সবসময় করছেন।

তবে, সেই উন্নয়ন যে একদিনে সম্ভব না তাও পরিষ্কার করে দিয়েছেন হাসিনা সরকার।

মানুষকে মিথ্যে কথা বলতে চায়না হাসিনা সরকার।

ঠিক যেমন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের  কিছুদিন আগে বলেন।

উনি বলেন দেশে উন্নয়ন চলার সময় মানুষকে দুর্ভোগ মেনে নিতে হবে।

এই বিষয় দেশের মানুষকে উনি অনুরোধ করেন যে তারা যেন কিছুটা হলেও এই বিষয়টি মেনে নেন।

মহাসড়কে দুর্ভোগের বিষয় উনি বলেনঃ  “মাননীয় সংসদ সদস্য দুর্ভোগের কবলে আছেন। জন্মকালের যন্ত্রণাটা কেউ কি অস্বীকার করতে পারবেন। “

জাতীয় সংসদে, সংসদ সদস্য নুরুল ইসলাম ওমর টাঙ্গাইলের এলেঙ্গায় মহাসড়কে চার লেইনের কাজ চলার কারণে যানজটের দুর্ভোগের কথা তুলে ধরলে তার উত্তরে মন্ত্রী এই কথাগুলি বলেছেন।

মন্ত্রী বলেনঃ "চার লেইন করার একটা যন্ত্রণা আছে, জন্মযন্ত্রণা। আমাদের এটা মেনে নেওয়া উচিৎ। বাস্তবতা বুঝতে হবে। রাস্তা করতে একটু সময় লাগে।

চিন্তা করতে হবে এবার এক বছরের মধ্যে ৯ মাস বৃষ্টি হয়েছে। বৃষ্টির মধ্যে কি কাজ করা যায়? ধৈর্য ধরুন, অপেক্ষা করুন, সময়মতো শেষ হবে।”



Video of the day
More Bangladesh News
Recent Photos and Videos

Web Statistics