Bangladesh
সব নথিই বঙ্গবন্ধুর বিপক্ষে, তবুও সত্য জানতে প্রকাশ করছি: শেখ হাসিনা

Bangladesh Live News | @banglalivenews | 07 Sep 2018

Truth will be unveiled: Hasina
নিজস্ব প্রতিনিধি, ঢাকা, সেপ্টেম্বর ৮ : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, পাকিস্তান ইন্টেলিজেন্স ব্রাঞ্চের সব নথিই বঙ্গবন্ধুর বিপক্ষে, তবুও প্রকাশ করছি মানুষ যেন সত্যকে আবিষ্কার করতে পারে।

বঙ্গবন্ধুর বিরুদ্ধে তৎকালীন পাকিস্তান ইন্টেলিজেন্স ব্রাঞ্চের গোপন নথি নিয়ে ‘সিক্রেট ডকুমেন্ট অবইন্টেলিজেন্স ব্রাঞ্চ অন ফাদার অব দ্য নেশন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান’ শিরোনামে ১৪ খন্ডের বইয়ের প্রথম খন্ডের মোকড় উন্মোচন অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

 

শুক্রবার (৭ সেপ্টেম্বর) বিকালে গণভবন প্রাঙ্গণে বইটির প্রকাশনা উৎসব উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানের শুরুতে বইয়ের প্রথম খন্ডের মোড়ক উন্মোচন করেন বঙ্গবন্ধুর বড় মেয়ে শেখ হাসিনা। নথিগুলো বই আকারে প্রকাশের কারণ তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘সবই ওনার বিপক্ষে। বিপক্ষে জেনেও আমি প্রকাশনায় নিয়ে এসেছি এই কারণে যে, এর ভেতর থেকে বাংলাদেশের জনগণ সত্যটাকে জানতে পারবে। সত্যকে আবিষ্কার করতে পারবে। বাংলাদেশের ইতিহাস জানতে পারবে।’


প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এটাতো পক্ষের কিছু না সবই তার (বঙ্গবন্ধুর) বিরুদ্ধে রিপোর্ট, আর বিরুদ্ধ রিপোর্টেও মধ্যে দিয়ে আমার মনে হয়, সব থেকে মূল্যবান তথ্য আবিষ্কার করতে পারবো। নথিগুলোতে অমূল্য তথ্য ভান্ডার রয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘৪৬টি ফাইল, ৪০ হাজারের মতো পাতা। সেগুলোকে বসে এডিট করে করে এর যেগুলো খুবই গুরুত্বপূর্ণ, আজকে আমরা তা প্রকাশ করতে পেরেছি।’


বঙ্গবন্ধু কন্যা বলেন, ‘ইন্টেলিজেন্স ব্রাঞ্চের রিপোর্ট সবই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বিরুদ্ধে। বিরুদ্ধের এই রিপোর্ট আমরা কেন প্রকাশ করলাম, এটা অনেকের মনে আসতে পারে। পৃথিবীতে কোথাও কোনও দেশে কেউ কখনও কোনও নেতার বিরুদ্ধে রিপোর্ট হলে সেটা প্রকাশ করেছে কিনা। আমার মনে হয় আজ  পর্যন্ত কেউ করেনি।’
শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমার আগ্রহ এই কারণে যে এই রিপোর্টের মধ্য ১৯৪৮ সাল থেকে ৭১ সাল পর্যন্ত জাতির পিতার প্রতিটি কর্মকান্ড, গতিবিধি, কোথায় গিয়েছেন, কোন মিটিং করেছেন, কোথায় কী বলেছেন, তার অনেক তথ্য সেখানে আছে। যে সব চিঠি জাতির পিতার কাছে গেছে, তার অধিকাংশ বাজেয়াপ্ত করা ছিল এবং অনেক চিঠি যেগুলো প্রাপকের কাছে কোনোদিন পৌঁছেনি।


বঙ্গবন্ধুর নাম মুছে ফেলার চেষ্টার হয়েছে মন্তব্য করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সত্যকে কখনও চাপা দেওয়া যায় না।’ তিনি বলেন, ‘এমনকি ভাষা আন্দোলন নিয়ে এমন কথা বলা হয়েছে যে, উনি তো জেলে ছিলেন ভাষা আন্দোলনে কী করলেন। এই যে মানুষের একটা বৈরি চিন্তাভাবনা আমি আশা করি, এই ডকুমেন্টগুলো পেলে পরে সত্যটা জানতে পারবে।’ অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধুর ছোট মেয়ে শেখ রেহানা, তার ছেলে রেদওয়ান মুজিব সিদ্দিক ববিসহ বঙ্গবন্ধু পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।




Video of the day
More Bangladesh News
Recent Photos and Videos

Web Statistics