Bangladesh
বন্ধুর সাহায্যে হাত বাড়ালও বাংলাদেশ, আন্তর্জাতিক মহলে হাসিনা সরকারকে নিয়ে আরও আশা হল তীব্র

Bangladesh Live News | @banglalivenews | 29 Sep 2018

Sheikh Hasina earning more praises from international community
ঢাকা, সেপ্টেম্বর ২৯ঃ একটি বন্ধু দেশকে পাশে নিয়ে চলে বাংলাদেশ।

মানুষের কথা ভেবে যেমন রোহিঙ্গাদের বিপুল  সংখ্যায় সমস্যার মাঝেও স্থান দিয়ে আন্তর্জাতিক দুনিয়ার মন জয় করেছে বাংলাদেশ।

 

আজ গতকাল প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী, প্রয়োজনীয় ওষুধের প্রথম চালান ভুটান দেশকে পাঠিয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ।


বৃহস্পতিবার বুড়িমারী স্থলবন্দরে ভুটান দূতাবাস ও দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বাংলাদশ থেকে পাঠানো এই জরুরি ওষুধের ৩৫ মেট্রিক টন চালানটি গ্রহণ করা হয়েছে।

 

ভুটানের হেলথ ট্রাস্ট ফান্ডে এক বছরের প্রয়োজনীয় ওষুধ সরবরাহের প্রতিশ্রুতি গত বছর দিয়েছিলেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

 

সেই সময় হাসিনা ভুটান সফরে গেছিলেন।


২০ কোটি টাকার ২৫৮ ধরনের ওষুধ সেপ্টেম্বর, অক্টোবর ও নভেম্বর এই তিন মাসে ভুটানে পাঠানোর কথা আছে বাংলাদেশ সরকারের।

 

৩৫ মেট্রিক টনের চালানটি এই সরবরাহের প্রথম পদক্ষেপ।

 

ভালো কাজের ফল হিসেবে আজ শেখ হাসিনা আন্তর্জাতিক মহলে নিজে এক আলাদা স্থান করে নিয়েছেন।

 

হাসিনার এই বিশেষ অবদানের ফলে বাংলাদেশ আজ আন্তর্জাতিকভাবে বিশেষ স্থান পেয়েছে।

 

হাসিনা সরকারের নেতৃত্বে বাংলাদেশের উন্নতি হয়েছে অনেক।

 

আর আজ এই হাসিনা সরকার সাধারণ নির্বাচনে জয়লাভ করে আবার ফিরে আসবে বলে আশা প্রকাশ করছেন পৃথিবীর বহু নেতারা।

 

বিভিন্ন রাষ্ট্র এবং আন্তর্জাতিক সংস্থাসমূহের প্রধানগণ বাংলাদেশের আগামী সাধারণ নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকার গঠন করবেন বলে দৃঢ় আশা প্রকাশ করেছেন।

 

তারা বুধবার বিভিন্ন সময়ে শেখ হাসিনার সঙ্গে পৃথক বৈঠকে এই আশাবাদ ব্যক্ত করেন। পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হক সাংবাদিকেদেও এ কথা জানান। তিনি বলেন, ‘সার্বিকভাবে সকলেই আশা প্রকাশ করেছেন যে, বর্তমান সরকারের ধারাবাহিকতা বজায় থাকবে এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশের নেতৃত্বে বহাল থাকবেন।’ প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম এবং জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন বুধবার স্থানীয় সময় রাতে নিউইয়র্কের হোটেল গ্রান্ড হায়াতে অনুষ্ঠিত এ ব্রিফিংয়ে উপস্থিত ছিলেন।


সাধারণ পরিষদের ৭৩তম অধিবেশনের ফাঁকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতিসংঘ সদর দফতরের দ্বিপাক্ষিক সভাকক্ষে পৃথকভাবে এস্তোনিয়ার প্রেসিডেন্ট ক্রেস্টি কালিজুলেইদ, ইউএন হাইকমিশনার ফর রিফ্যুুজিস (ইউএনএইচসিআর) ফিলিপ্পো গ্রান্দি, ইউনিসেফের নির্বাহী পরিচালক হেনেরিয়েটা ফোর, মিয়ানমার বিষয়ে জাতিসংঘ মহাসচিবের বিশেষ দূত রাষ্ট্রদূত ক্রিস্টিন শ্যার্নার বার্গেনার এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্র এবং নিরাপত্তা নীতি বিষয়ক উচ্চপদস্থ প্রতিনিধি ফেডেরিকা মঘেরনিনির সঙ্গে বৈঠক করেন। পাশাপাশি তিনি এ দিন জলবায়ু সংক্রান্ত প্যারিস চুক্তি ‘সিওপি-২৪’ বাস্তবায়ন বিষয়ে সদস্যদের উচ্চ পর্যায়ের এক আলোচনা অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন।


পররাষ্ট্র সচিব বলেন, প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দিত করে বৈঠকে তারা বলেন, ‘আমরা আবারও আপনাকে (শেখ হাসিনা) প্রধানমন্ত্রী হিসেবে আমাদের মাঝে পাব’। তিনিবলেন, তার (প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা) সময়ে আঞ্চলিক স্থিতিশীলতা, রোহিঙ্গাদের বিষয়ে ভূমিকা, আঞ্চলিক অর্থনৈতিক উন্নয়ন এবং ঐক্য-সংহতির কথা বিবেচনা করেই বিভিন্ন রাষ্ট্রপ্রধান এবং আর্ন্তজাতিক সংস্থাসমূহ এ আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন।


প্রেস সচিব বলেন, রাষ্ট্রপ্রধান এবং বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থাসমূহ আশাবাদ ব্যক্ত করে যে, বাংলাদেশে গণতন্ত্র এবং উন্নয়ন উভয়েই একযোগে চলবে। তারা আগামীতেও বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ফোরামে শেখ হাসিনার সঙ্গে পুনরায় দেখা হবার আশাবাদও ব্যক্ত করেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশে অভূতপূর্ব অর্থনৈতিক অগ্রগতিরও ভূয়শী প্রশংসা করেন তারা।


পররাষ্ট্র সচিব বলেন, এটা কী করে সম্ভব হলো তারা এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকেও জানতে চান। নানা প্রতিবন্ধকতা সত্ত্বেও এ বছরের ৭ দশমিক ৮৬ শতাংশ প্রবৃদ্ধিকে বাংলাদেশের উন্নয়নের প্রতিচ্ছবি বলে উল্লেখ করেন তারা।  




Video of the day
More Bangladesh News
Recent Photos and Videos

Web Statistics