Bangladesh
অধ্যক্ষ সিরাজের পক্ষে আদালতে দাঁড়াননি কোনো আইনজীবী

Bangladesh Live News | @banglalivenews | 23 May 2019

No lawyer ready to represent for Siraj
নিজস্ব প্রতিনিধি, ঢাকা, মে ২৩ : ফেনীর সোনাগাজী উপজেলার মাদরাসা ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে যৌন নিপীড়নের পর অগ্নিদগ্ধ করে হত্যা মামলার প্রধান আসামি সিরাজ উদ দৌলাকে আরও দুদিনের রিমান্ড দিয়েছেন আদালত। বুধবার ফেনীর জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম মো. জাকির হোসাইন এ আদেশ দেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) পরিদর্শক মো. শাহ আলম বলেন, নতসরাত হত্যা মামলার তদন্তের স্বার্থে প্রধান আসামি সিরাজ উদ দৌলাকে আদালতে তুলে আরও সাতদিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়। আদালত তার দুদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এ সময় আদালতে তার পক্ষে কোনো আইনজীবী ছিলেন না। পরে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।


এর আগে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ১০ এপ্রিল অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলার ১০ দিনের রিমান্ড চাইলে সাতদিনের রিমান্ড দেন ফেনীর জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম শরাফ উদ্দিন আহমেদ।


আলোচিত নুসরাত হত্যা মামলায় এ পর্যন্ত ২১ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ ও পিবিআই। এদের মধ্যে রয়েছেন অধ্যক্ষ এসএম সিরাজ উদ দৌলা, কাউন্সিলর ও পৌর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাকসুদ আলম, শিক্ষক আবছার উদ্দিন, সহপাঠী আরিফুল ইসলাম, নূর হোসেন, কেফায়াত উল্লাহ জনি, মোহাম্মদ আলা উদ্দিন, শাহিদুল ইসলাম, অধ্যক্ষের ভাগনি উম্মে সুলুানা পপি, জাবেদ হোসেন, জোবায়ের আহমেদ, নতর উদ্দিন, শাহাদাত হোসেন শামীম, মো. শামীম, কামরুন নাহার মনি, আবদুর রহিম ওরফে শরিফ, ইফতেখার হোসেন রানা, এমরান হোসেন মামুন, মহিউদ্দিন শাকিল, হাফেজ আবদুল কাদের ও আওয়ামী লীগ সভাপতি ও ওই মাদরাসার সহ-সভাপতি রুহুল আমিন।

এ মামলায় অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলাসহ ১২ জন আদালতে হত্যার দায় স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছেন। তারা হলেন- নুর উদ্দিন, শাহাদাত হোসেন শামীম, উম্মে সুলতানা পপি, কামরুন নাহার মনি, জাবেদ হোসেন, আবদুর রহিম ওরফে শরীফ, হাফেজ আবদুল কাদের ও জোবায়ের আহমেদ, এমরান হোসেন মামুন, ইফতেখার হোসেন রানা ও মহিউদ্দিন শাকিল।


চলতি বছরের ২৭ মার্চ সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদরাসার আলিম পরীক্ষার্থী নতসরাত জাহান রাফিকে যৌন নিপীড়নের ঘটনায় মাদরাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ৬ এপ্রিল ওই মাদরাসা কেন্দ্রের সাইক্লোন শেল্টারের ছাদে নিয়ে অধ্যক্ষের সহযোগীরা নুসরাতের শরীরে আগুন ধরিয়ে দেয়। টানা পাঁচদিন মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে মারা যান নুসরাত জাহান রাফি।


এ ঘটনায় নুসরাতের বড় ভাই মাহমুদুল হাসান নোমান বাদী হয়ে অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলাসহ আটজনের নাম উল্লেখ করে সোনাগাজী মডেল থানায় মামলা করেন। মামলার এজহারভুক্ত আট আসামিসহ এখন পর্যন্ত ২১ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ ও পিবিআই।




Video of the day
More Bangladesh News
Recent Photos and Videos

Web Statistics