Column
ভারত- বাংলাদেশি ছাত্র ছাত্রীদের আকর্ষণীয় গন্তব্য

Bangladesh Live News | @banglalivenews | 15 Nov 2019

India Attractive Destination for Bangladeshi Students
বাংলাদেশের ছাত্র ছাত্রীরা উচ্চশিক্ষার্থে বিদেশ যাত্রায় আগ্রহী। অ্যাডভানস স্টাডিজের জন্য প্রতি বছর বিদেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলিতে আবেদন করেন হাজার হাজার ছাত্র ছাত্রী। অ্যাডভানস স্টাডিজ ছাড়াও প্রাথমিক শিক্ষালাভের উদ্দেশ্যে ছাত্র ছাত্রীদের বিদেশ গমন এখন ক্রমেই একটি সুস্পষ্ট ট্রেন্ড হয়ে উঠেছে।

এ কথা আজ সুবিদিত যে তুলনামূলকভাবে কম খরচে উচ্চমানের শিক্ষাদানের ব্যবস্থা করতে ভারত সক্ষম হয়েছে। উচ্চশিক্ষার জন্য বাংলাদেশ থেকে যে সব ছাত্র ছাত্রী বিদেশে যান, তাঁদের মধ্যে মাত্র ২০ শতাংশ, বিশেষত যারা ধনী পরিবারের, কেবলমাত্র তাঁরাই পশ্চিমের দেশগুলিতে যেতে পারেন। বাকিরা ভারতকেই গন্তব্য বেছে নেন, কারণ ভারতই সম্ভবত একমাত্র দেশ, যেখানে অনেক কম ব্যয়ে উচ্চশিক্ষা লাভ করা যায়। 

 

ভারতের পক্ষে আর একটি ব্যাপার আছে। তা হল সহজে আসার সুবিধা। উদার ভিসা ব্যবস্থা সহ ভারত বাংলাদেশের ঠিক পাশের প্রতিবেশী। পশ্চিমি দেশগুলির তুলনায় তাই স্বাভাবিকভাবেই ভারতে আসার খরচ অনেক কম। সব থেকে বড় কথা, খাদ্যাভ্যাস, ভাষা, সংস্কৃতি এবং জীবনধারণের ব্যয়ের মানে অনেকটা মিল থাকায় বাংলাদেশি ছাত্র ছাত্রীদের পছন্দের তালিকায় অগ্রাধিকার ভারতের।  

 

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের উত্তরে বাংলাদেশ থেকে অনেক মানুষ এমন কি তাঁদের ছোট বাচ্চাদেরও ভারতে পাঠান প্রাথমিক শিক্ষা লাভের জন্য। শিলিগুড়ি, দার্জিলিং এবং কালিম্পঙের মত জেলা শহরগুলিতে এই কারণে অনেক আবাসিক স্কুল গড়ে উঠেছে। এ ছাড়াও আরও হাজার হাজার ছাত্র ছাত্রী পশ্চিমবঙ্গের অন্যান্য জায়গার  শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলিকে ভর্তির জন্য বেছে নেন। ঢাকা থেকে অনেক কম খরচে এই সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলির সঙ্গে যোগাযোগ রাখা সুবিধাজনক অভিভাবকদের কাছে।

 

সর্বোপরি, ভিসা-মঞ্জুর ব্যবস্থায় উদারীকরণের ফলে ভারতে বহু বাংলাদেশি ছাত্র ছাত্রীর সমাগম ঘটেছে। ব্যক্তিগত উদ্যোগ ছাড়াও অনেক ছাত্র ছাত্রী উদ্যোক্তা হিসেবে পাশে পান ভারত সরকারকে। উচ্চ শিক্ষার জন্য ইন্ডিয়ান কাউন্সিল ফর কালচারাল রেলেশনস প্রতি বছর  কয়েক শো বাংলাদেশি ছাত্র ছাত্রীর জন্য বৃত্তির ব্যবস্থা করে থাকে। বৃত্তি ছাড়াও যাতায়াতের খরচ বহন করে কাউন্সিল। ঢাকায় অবস্থিত ভারতীয় দূতাবাস থেকে এই সুবিধা দেওয়া হয়। এ ছাড়াও আরও নানা রকমের সুযোগ সুবিধা আছে।

 

ফরেন অ্যাফেয়ার্স একজিবিশন অ্যান্ড মিডিয়া প্রাইভেট লিমিটেড নামে একটি সংস্থা সম্প্রতি ঢাকায় ভারতীয় দূতাবাসে একটি কনফারেন্সের আয়োজন করেছিল। এই কনফারেন্সে উপস্থিত ছিল ভারতের ৩০টি বিশিষ্ট বিশ্ববিদ্যালয়, কলেজ এবং আবাসিক শিক্ষাপ্রতিষ্টান। বাংলাদেশি ছাত্র ছাত্রীদের আকর্ষণ করার জন্য এখানে ঘোষণা করা হয় যে, এই সব প্রতিষ্ঠানগুলিতে শিক্ষালাভে ইচ্ছুক বাংলাদেশি ছাত্র ছাত্রীদের ব্যয়ভার এক চতুর্থাংশ কমিয়ে দেওয়া হবে। এই ঘোষণার ফলে ভারতে পড়তে আসার জন্য বাংলাদেশি ছাত্র ছাত্রীদের আকাঙ্ক্ষা আরও বৃদ্ধি পেয়েছে।

 

পড়াশুনো করার জন্য বিদেশি গন্তব্য হিসেবে এশিয়ার মধ্যে অন্যতম সেরা দেশ ভারতে আসেন বিভিন্ন দেশের ছাত্র ছাত্রীরা। উচ্চশিক্ষার জন্য বিভিন্নরকমের ডিগ্রীদানের ব্যবস্থা থাকা অসংখ্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সহ ভারত বিদেশে পড়তে চাওয়া উচ্চশিক্ষার্থী বাংলাদেশী ছাত্র ছাত্রীদের কাছে নিজেকে এক আদর্শ স্থান হিসেবে প্রমাণ করেছে। ভারতের বেশিরভাগ বিশ্ববিদ্যালয়ই তাদের চমৎকার ইঞ্জিনিয়ারিং এবং টেকনোলজি পাঠক্রমের জন্য সুপরিচিত। এখান থেকে উপমহাদেশের শ্রেষ্ঠ স্নাতকেরা উত্তীর্ন হয়ে থাকেন। এই ধরণের অতি প্রশংসনীয় কর্মকৃতির খতিয়ান নিয়েও আন্তর্জাতিক ছাত্র ছাত্রীদের কাছে ভারত স্বল্প খরচের জায়গা হয়েই রয়েছে।

 

সাধারণ পাঠক্রম ছাড়াও ভারতে ধর্মীয় শিক্ষার সুযোগও রয়েছে। হিফাজত-এ-ইসলামের প্রধান মওলানা আল্লামা শফি সহ অনেক ইসলামি পণ্ডিত ভারতের উত্তরপ্রদেশের দেওবন্দে মাদ্রাসা শিক্ষা লাভ করেছেন।




Video of the day
Recent Photos and Videos

Web Statistics