Bangladesh

রোহিঙ্গাদের ফেরাতে যুদ্ধ ছাড়া সবকিছু করছি: পররাষ্ট্রমন্ত্রী রোহিঙ্গা
ফাইল ছবি

রোহিঙ্গাদের ফেরাতে যুদ্ধ ছাড়া সবকিছু করছি: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

বাংলাদেশ লাইভ নিউজ | @banglalivenews | 09 Jul 2023, 02:46 pm

ঢাকা, ৯ জুলাই ২০২৩ : পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, ‘রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠাতে যুদ্ধ ছাড়া সবকিছু করছি।

বিকল্প সব ব্যবস্থা উন্মুক্ত রেখেছি। আমাদের বিশ্বাস আলোচনার মাধ্যমে সমস্যার সমাধান করতে পারবো। একটি পাইলট প্রকল্প নেওয়ার চেষ্টা করছি। অনেকে তাতে বাধা দিচ্ছে। প্রকল্পে শুরু হলে নিজেদের বাড়িঘরে যেতে পারবেন রোহিঙ্গারা।’

শনিবার রাজধানীর বেইলি রোডে ফরেন সার্ভিস একাডেমিতে কূটনীতি বিষয়ক সাংবাদিকদের সংগঠন ডিপ্লোম্যাটিক করেসপন্ডেন্টস অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশ (ডিক্যাব) আয়োজিত আলোচনা সভায় এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান।
আঞ্চলিক অর্থনৈতিক জোট ব্রিকস থেকে অনুরোধ পেলে বাংলাদেশ সদস্য হবে জানিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, অনুরোধ পেলে আমাদের কোনো আপত্তি থাকবে না। আমরা আরেকটি জানালা খুলে দিতে চাই।

এরই মধ্যে আমরা ব্রিকসের ব্যাংকে যোগ দিচ্ছে। আমাদের অনেক রিসোর্স, বিনিয়োগ দরকার। সেক্ষেত্রে এটি আরেকটি বিকল্প হতে পারে। কাজেই তারা দাওয়াত দিলে আমরা যোগদান করবো।

নির্বাচন নিয়ে ২০১৪ সালে জাতিসংঘের সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল অস্কার ফারনান্দেজ তারানকোর মধ্যস্থতায় আমরা সংলাপ দেখেছি। তখন তিন দফা সংলাপ হয়েছিল। এখন কী নিজেদের মধ্যস্থতায় সংলাপ হবে, নাকি তৃতীয় কোনো পক্ষের অপেক্ষায় আছি। এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, কোনো সংলাপে অগ্রগতি হয়েছে বলে আমি জানি না। এসব বিষয়ে দলের সেক্রেটারি কথা বলতে পারবেন। সংলাপের মাধ্যমে আমাদের আগে খুব একটা অর্জন হয়েছে বলে ধারণা নেই।

বাংলাদেশ নিয়ে পশ্চিমাদের সঙ্গে রাশিয়ার যে পাল্টাপাল্টি বক্তব্য, তা কীভাবে দেখছেন, এমন প্রশ্নে এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, এটি তাদের বক্তব্য। এ নিয়ে আমাদের কিছু বলার নেই।

নির্বাচনের আগে সরকারের পদত্যাগ নিয়ে এক প্রশ্নে মন্ত্রী বলেন, যুক্তরাষ্ট্রে নির্বাচনের আগে কী প্রেসিডেন্ট পদত্যাগ করেন? ইংল্যান্ডে নির্বাচনের আগে প্রধানমন্ত্রী কী সরে দাঁড়ান? দুনিয়ার কোথাও কী তত্ত্বাবধায়ক ব্যবস্থা আছে? পাকিস্তানে বোধহয় কিছুদিনের জন্য ছিল। এগুলো অনর্থক আলোচনা। আমাদের শাসনতন্ত্র ও আইনানুযায়ী আমরা স্বচ্ছ, সুন্দর নির্বাচনের আয়োজন করবো।

রোহিঙ্গা নিয়ে মিয়ানমারের সঙ্গে একটি সম্মানজনক সমাধানে পৌঁছাতে পারিনি। এটি কী আমাদের ব্যর্থতা না- এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, ১১ লাখ রোহিঙ্গাকে আমরা এমন সময় আশ্রয় দিয়েছিলাম, যখন তারা নিপীড়িত হয়েছে। মানবিক দিক বিবেচনা করে আমরা তাদের আশ্রয় দিয়েছি। আর মিয়ানমারের একটা অভ্যাস আছে, আগেও তারা লোকজনকে বিতাড়িত করেছে, সত্তর, আশি ও নব্বইয়ের দশকে। মিয়ানমারে প্রায় ১২৫টি নৃ-তাত্ত্বিক গোষ্ঠী আছে। রোহিঙ্গাদের নিজেদের বলে স্বীকার করে না মিয়ানমার। ১৯৬৪ সাল থেকে ওদের দুর্গতি শুরু হয়েছে। এর আগে তারা মিয়ানমারের মন্ত্রিসভার সদস্যও ছিল।

সর্বশেষ শিরোনাম

চুমুক রেস্টুরেন্টের দুই মালিকসহ ৩ জন আটক Sat, Mar 02 2024

নিহত তিন সন্তান ও স্বামী-স্ত্রী পাশাপাশি সমাহিত Sat, Mar 02 2024

পুলিশ সপ্তাহের অনুষ্ঠান বাতিল Sat, Mar 02 2024

বেইলি রোডে আগুনে দগ্ধদের চিকিৎসার দায়িত্ব নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী Sat, Mar 02 2024

আজ সন্ধ্যায় শপথ নিচ্ছেন মন্ত্রিসভার সাত নতুন সদস্য Fri, Mar 01 2024

বেইলি রোড অগ্নিকাণ্ড : নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৪৬ Fri, Mar 01 2024

দেশে প্রতি হাজার মানুষের জন্য হাসপাতালে একটি শয্যা Fri, Mar 01 2024

ইসরায়েলি হত্যাযজ্ঞে চুপ থেকে বিএনপি-জামায়াত গাজায় গণহত্যার পক্ষে অবস্থান নিয়েছে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী Fri, Mar 01 2024

দেশ ধ্বংসের মাস্টারপ্ল্যান বাস্তবায়নে তৎপর বিএনপি : ওবায়দুল কাদের Fri, Mar 01 2024

বিনামূল্যে সেবা দিয়ে জরিমানার মুখে ৫০ বিদেশি ডাক্তার Fri, Mar 01 2024