Bangladesh

সুরমার তীর উপচে সিলেট শহরে ঢুকছে বন্যার পানি সিলেটে বন্যা
ছবি: সংগৃহিত সুরমা নদীর পানিতে সিলেট নগরের বিভিন্ন এলাকা প্লাবিত হয়েছে

সুরমার তীর উপচে সিলেট শহরে ঢুকছে বন্যার পানি

Bangladesh Live News | @banglalivenews | 17 May 2022, 12:44 pm

নিজস্ব প্রতিনিধি, ঢাকা, ১৭ মে ২০২২: দুদিন ধরে সিলেটে বৃষ্টি কমে এলেও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের কারণে বন্যার পানি বাড়ছে। নগরের বুক চিড়ে বয়ে চলা সুরমা নদীর পানি বাড়ায় সোমবার (১৬ মে) দুপুর থেকে সিলেট নগরের নিম্নাঞ্চলগুলোতে পানি প্রবেশ করতে শুরু করে।

বিকেলে নগরের বিভিন্ন স্থানে ঘুরে দেখা গেছে, নগরের সহস্রাধিক বাসা-বাড়ি ও ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে পানি ঢুকে পড়ে। নগরে সিলেট সার্কিট হাউস, তালতলা, কালিঘাট, বেতবাজার, তেরতন, শাহজালাল উপশহরসহ বিভিন্ন পাড়া-মহল্লার রাস্তা পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় দুর্ভোগে পড়েছেন হাজারো নগরবাসী।

এছাড়া সিলেটের সীমান্তবর্তী উপজেলা গোয়াইনঘাট, কানাইঘাট, কোম্পানীগঞ্জ, জৈন্তাপুর, জকিগঞ্জ ও সিলেট সদর এই ছয় উপজেলার নদীগুলোতে অব্যাহতভাবে পানি বাড়ছে। সুরমা, কুশিয়ারা ও সারি নদীর পানি কয়েকটি পয়েন্টে বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে বলে জানিয়েছে পানি উন্নয়ন বোর্ড।

সোমবার দুপুর থেকে সুরমা নদীর তীর উপচে নগরের বিভিন্ন এলাকায় পানি ঢুকতে শুরু করে। এতে তলিয়ে যায় নগরের সর্ববৃহৎ পাইকারি বাজার কালিঘাট, তালতলা, কাজিরবাজার, বেতবাজার, শাহজালাল উপশহর, সোবহানিঘাট, ছড়ারপাড়, শেখঘাট, ঘাসিটুলা, মাছিমপুর, তেরতন, হবিনন্দী, সাদিপুরসহ বিভিন্ন এলাকা। এসব এলাকার বাসাবাড়ি, দোকানে পানি ঢুকেছে।

নগরের পাইকারি বাজার কালিঘাটের ব্যবসায়ী সাংস্কৃতিক সংগঠক নিলাঞ্জন দাশ টুকু বলেন, দুপুরের দিকে হঠাৎ পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় নদী উপচে দোকানে পানি ঢুকে পড়েছে। দোকানের গুদামে প্রচুর পেঁয়াজ, রসুন, আলুসহ বেশকিছু পচনশীল পণ্য রয়েছে। বিকেলে পুরো এলাকা তলিয়ে গেছে। তিনি বলেন, দ্রুত পানি বাড়ায় বেশকিছু পণ্য পানিতে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। এ কারণে কালিঘাটের আড়তদার ও পাইকারি ব্যবসায়ীরা বড় ধরনের ক্ষতির মুখে পড়েছেন।

আবহাওয়া অধিদপ্তর সিলেটের সিনিয়র আবহাওয়াবিদ মো. সাঈদ আহমদ চৌধুরী বলেন, সিলেটে দুদিন ধরে বৃষ্টিপাত কমেছে। তবে উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের কারণে পানি বাড়ছে। এ কারণে সিলেটের নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে।

এদিকে, সিলেটের ছয় উপজেলায়ও পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। বিভিন্ন উপজেলায় গ্রামীণ রাস্তা-ঘাট তলিয়ে যাওয়ায় বেড়েছে জনদুর্ভোগ। অনেক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পানি ঢুকে পড়ায় পাঠদান বন্ধ রয়েছে।