Muktijudho

মুক্তিযোদ্ধা-আমলা আকবর আলি খান আর নেই আকবর আলি খান
সংগৃহিত জানাজার পর গার্ড অব অনার প্রদান করা হয়, (ইনসেটে) আকবর আলি খান

মুক্তিযোদ্ধা-আমলা আকবর আলি খান আর নেই

Bangladesh Live News | @banglalivenews | 09 Sep 2022, 07:40 pm

নিজস্ব প্রতিনিধি, ঢাকা, ৯ সেপ্টেম্বর ২০২২: মুক্তিযোদ্ধা, আমলা, অর্থনীতিবিদ ও সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা আকবর আলি খান আর নেই (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। বৃহস্পতিবার রাতে তিনি মারা যান।

এভারকেয়ার হাসপাতালের জেনারেল ম্যানেজার আরিফ মাহমুদ জানান, বৃহষ্পতিবার রাত ১০টার দিকে আমাদের এভারকেয়ার হাসপাতালে নিয়ে আসা হলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। আমরা শঙ্কা করছি হাসপাতালে আসার পথেই তিনি মারা গিয়েছেন। আমাদের এখানে শুধু তার মৃতদেহটাই এসেছে। আমরা তাকে জীবিত পাইনি।

আকবর আলি খানের ছোট ভাই কবীর উদ্দিন খান গণমাধ্যমকে জানান, হার্ট অ্যাটাকে তার মৃত্যু হয়েছে।

আজ শুক্রবার বাদ জুম্মা গুলশান আজাদ মসজিদে ড. আকবর আলি খানের জানাজা সম্পন্ন হয়েছে। জানাজা শেষে তাকে রাষ্ট্রীয় সম্মাননা তথা গার্ড অব অনার দেওয়া হয়। শুক্রবার (৯ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ৯টায় হাসপাতাল থেকে তার মরদেহ গুলশান-১ এর বাসায় নেওয়া হয়। এরপর দুপুর সাড়ে ১২টায় গুলশানের বাসা থেকে তার মরদেহ আজাদ মসজিদে নেওয়া হয়। জুমার নামাজের পর খতিব মাওলানা মাহমুদুল হাসানের ইমামতিতে তার জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

জানাজায় অংশ নেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীসহ আকবর আলি খানের আত্মীয়স্বজন, সরকারি সাবেক বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা ও সাধারণ মানুষ।
জানাজা শেষে ডা. জাফরুল্লাহ বলেন, বর্তমানের এই সংকটময় সময়ে সত্য কথা বলার মতো লোকের খুবই অভাব। এমন সময় তাকে জাতির খুব প্রয়োজন ছিল। কিন্তু এই মুহূর্তে তাকে হারানোর ক্ষতি অপূরণীয়।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, আকবর আলি খান ছিলেন একজন মেধাবী মানুষ। তিনি একজন সরকারি আমলা ছিলেন। একজন সরকারি আমলা হলেও তার সারাজীবন ছিল জনগণের সঙ্গে সম্পৃক্ত।

জানাজা শেষে মরদেহ দাফনের উদ্দেশ্যে মিরপুর শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে নিয়ে যাওয়া হয়। মিরপুর বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য সংরক্ষিত অংশে চিরনিদ্রায় শায়িত হন তিনি।
শুক্রবার (৯ সেপ্টেম্বর) বিকেল ৩টা ৫ মিনিটে তার দাফন সম্পন্ন হয়। এসময় তার পরিবার ও আত্মীয়স্বজনরা উপস্থিত ছিলেন।

১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে আকবর আলি হবিগঞ্জের মহুকুমা প্রশাসক বা এসডিও ছিলেন। সেসময় সক্রিয়ভাবে মুজিবনগর সরকারের সঙ্গে কাজ করায় তার বিচার করে পাকিস্তান সামরিক সরকার। তারই অনুপস্থিতিতে দেওয়া হয় ১৪ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড।

সর্বশেষ শিরোনাম

পহেলা ডিসেম্বরকে ‘মুক্তিযোদ্ধা দিবস’ ঘোষণার দাবি সেক্টর কমান্ডারস ফোরামের Thu, Dec 01 2022

বীর মুক্তিযোদ্ধার চিকিৎসা সহায়তা বেড়ে দ্বিগুণ Sun, Nov 27 2022

বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সমাধি সংরক্ষণে অবহেলায় সংশ্লিষ্টদের শাস্তি দাবি Fri, Nov 18 2022

৪২১ উপজেলায় মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স, ২৮১০ বীর নিবাস নির্মাণ শেষ Thu, Nov 10 2022

মুক্তিযোদ্ধাদের ঘাতকদেরও বিচার হবে Tue, Nov 08 2022

যুক্তরাষ্ট্র্রের সংখ্যাগরিষ্ঠ জনগণ বাংলাদেশের মুক্তি সংগ্রামকে সমর্থন করেছিল: টেড কেনেডি Wed, Nov 02 2022

ভাষা সৈনিক বীর মুক্তিযোদ্ধা রণেশ মৈত্র আর নেই Mon, Sep 26 2022

একাত্তরের গণহত্যার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি চান মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী Mon, Sep 19 2022

বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন ভারতের বিদায়ী হাই কমিশনারের Sat, Sep 17 2022

মুক্তিযোদ্ধা-আমলা আকবর আলি খান আর নেই Fri, Sep 09 2022