Travel

আজ বিশ্ব পর্যটন দিবস : বিদেশি পর্যটকদের উপর থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার বিশ্ব পর্যটন দিবস
ছবি: সংগৃহিত কক্সবাজারে বিদেশী পর্যটক

আজ বিশ্ব পর্যটন দিবস : বিদেশি পর্যটকদের উপর থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার

Bangladesh Live News | @banglalivenews | 27 Sep 2022, 11:18 am

নিজস্ব প্রতিনিধি, ঢাকা, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ : আজ বিশ্ব পর্যটন দিবস আজ। বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও আজ মঙ্গলবার (২৭ সেপ্টেম্বর) বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে দিবসটি পালিত হচ্ছে।

এদিকে বাংলাদেশে বিদেশি পর্যটক আসার বিধিনিষেধ তুলে নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলী। তিনি বলেন, করোনা মহামারির কারণে দীর্ঘ দুই বছরেরও বেশি সময় ধরে বাংলাদেশে বিদেশিদের ভিসা দেওয়া বন্ধ ছিল। সোমবার সেই বিধিনিষেধ তুলে নেওয়া হয়েছে।

সোমবার (২৬ সেপ্টেম্বর) বিকেলে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে পর্যটন ভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান তিনি। বিশ্ব পর্যটন দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের নানা কর্মসূচি উপলক্ষে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলী বলেন, করোনা সংক্রান্ত জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির সভা শেষে বিদেশিদের জন্য এই বিধিনিষেধ তুলে নেওয়া হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে বর্তমান সরকার পর্যটন শিল্পের উন্নয়নে আন্তরিকভাবে কাজ করছে। পর্যটন শিল্পে কোভিড-১৯ মহামারির কারণে সৃষ্ট ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে ও টেকসই পর্যটন উন্নয়ন নিশ্চিতে বর্তমান সরকার বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে।

তিনি বলেন, করোনার প্রভাবে বাংলাদেশের পর্যটন শিল্পের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা, সংকট থেকে উত্তরণের উপায় ও ভবিষ্যতে প্রতিযোগিতামূলক পর্যটন বাজারে সুবিধা অর্জনের জন্য বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা ও তত্ত্বাবধানে বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড ইতোমধ্যে একটি ‘ট্যুরিজম রিকভারি প্ল্যান’ নিয়েছে। এই পরিকল্পনায় উল্লিখিত কার্যক্রম বাস্তবায়নের জন্য ২০টি গাইডলাইন প্রস্তুত করে সেই অনুযায়ী কাজ করছে। যার ফলে ইতোমধ্যে পর্যটন শিল্পের সঙ্গে সম্পৃক্ত ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো ঘুরে দাঁড়াচ্ছে। গতি ফিরছে দেশের অভ্যন্তরীণ পর্যটন শিল্পে।

বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন ও বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডসহ বিভিন্ন সংস্থা দিবসটি উপলক্ষে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। এবার দিবসটির প্রতিপাদ্য হলো- ‘পর্যটনে নতুন ভাবনা’। পর্যটনের ভূমিকা সম্পর্কে জনসচেতনতা বৃদ্ধিসহ সামাজিক, সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক এবং অর্থনৈতিক উপযোগিতাকে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে দেওয়া এই দিবসের লক্ষ্য।

দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণী দিয়েছেন।