All Column

Road accident kills two, injures three in Feni

Students to get new books on the first day of 2021

Foreign reserve exceeds $41 billion

Another 19 die of Covid-19 in Bangladesh

Paris: People mourn Nice knife attack

চট্টগ্রাম অস্ত্র পাচার কান্ড ও পাক যোগসাজস

শেষ পর্যন্ত ঝুলি থেকে বেড়ালটা বেরিয়েই পড়ল। বাংলাদেশের প্রধান গোয়েন্দা সংস্থা ন্যাশনাল সিকিওরিটি ইন্টলিজেনসের (এন এস আই) প্রাক্তন ডিরেকটর জেনারেল ব্রিগেডিয়ার(অবঃ) আবদুর রহিম এবং ঐ একই সংস্থার প্রাক্তন ডিরেকটর উইং কম্যান্ডার (অবঃ) শাহাবুদ্দিন আহমেদ ২০০৪ সালের ২রা এপ্রিল চট্টগ্রামে ধরা পড়া বিপুল অস্ত্র শস্ত্র পাচারের ব্যাপারে যে পাকিস্তান জড়িত ছিল, সে ব্যাপারে সম্প্রতি দু’টি পৃথক কিন্তু একই ধরনের বিবৃতি দিয়েছেন। ভুটানে ২০০৩ সালে লুকিয়ে থাকা আলফা জঙ্গীদের বিরুদ্ধে ভারতীয় সেনা বাহিনীর অভিযানের ফলে ঐ সংগঠনের কমে যাওয়া অস্ত্র ভান্ডারকে মজবুত করতেই চট্টগ্রাম দিয়ে অস্ত্র পাঠান হচ্ছিল। ...

জামাতের ‘শিবির’কে মূল স্রোতে আনা চেষ্টা করা হোক

টেলিভিশন এবং খবরের কাগজে প্রায়ই পুলিশকে আক্রমনোদ্যত জামাত-শিবিরের কর্মীদের ছবি দেখা যায়। এ ছাড়াও অন্য ভাবে এরা খবরে আসে—যেমন, যুদ্ধাপরাধের অভিযোগে গ্রেপ্তার হওয়া জামাত নেতা-কর্মীদের জামিন মঞ্জুর না হওয়ায় সংশ্লিষ্ট বিচারকদের ‘ইসলাম বিরোধী’ বলে চিহ্নিত করে এবং তাঁদের প্রানে মারার হুমকি দিয়ে। এই সব হুমকি যারা দেয়, তারা সব তরুন শিবির কর্মী, যাদের জন্ম বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পরে এবং যারা জানেইনা ১৯৭১ সালে বাংলাদেশ সৃষ্টি হওয়া ব্যর্থ করতে দখলদারি পাকিস্তানি সেনাদের সহযোগী হিসেবে জামাত কি ঘৃণ্য ভূমিকা পালন করেছিল। ...

নিষিদ্ধ হোক সাম্প্রদায়িক দলগুলি

হরতালের শহর’ ঢাকায় ডিসেম্বরের ১৮ তারিখে হয়ে গেল আরও একটি হরতাল। শুধু শহরেই নয়, এই হরতাল বস্তুতপক্ষে পালন করা হল সারা দেশেই। এ’রকম হরতাল বাংলাদেশে এখন অহরহ হচ্ছে, এবং আরও অনেক হতে চলেছে। তবে বি এস ডি’র ডাকা ১৮ ই ডিসেম্বরের হরতাল ছিল সম্পূর্ন অন্য রকম। এই দিন কোনও হিংসার ঘটনা অথবা নাগরিক সম্পত্তি নষ্ট হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি, কোনও মৃত্যুও হয়নি।অনেক সংবাদপত্র এই হরতালকে ‘অনন্য’ আখ্যা দিয়েছে, কারন পুলিশের উপর আক্রমণ হয়নি। বিরোধী রাজনৈতিক দল অবশ্য একে ‘বি এস ডি’র ডাকা এবং সরকারের করা’ হরতাল বলে অভিহিত করেছে। এর প্রধান দাবিগুলি ছিল উনিশশো একাত্তরের যুদ্ধাপরাধগুলির দ্রুত বিচার করা এবং সাম্প্রদায়িক সংগঠনগুলিকে নিষিদ্ধ করা। ...

বেগম খালেদা জিয়ার ভারত সফর ও কিছু প্রশ্ন

এই বছরে হতে চলা বাংলাদেশের সাধারন নির্বাচনের আগে গত অক্টোবর-নভেম্বর মাসে বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট পার্টির চেয়ার পার্সন বেগম খালেদা জিয়ার ভারত সফর এক রাজনৈতিক আলোচনা জাগিয়ে তুলেছে। এই আলোচনা ঘুরপাক খাচ্ছে খালেদার দলের নতুন কোন রাজনৈতিক সমীকরণ এবং অবস্থানের সম্ভাবনার প্রশ্নে। খালেদা জিয়া ভারতে এসে কি বলেছেন, দেশে ফিরে গিয়েই বা কি বললেন এবং ভারতের ব্যাপারে তাঁর বি এন পি\'র যদি কোন অবস্থানগত পরিবর্তন হয়ে থাকে সেটাই বা দলীয় নেতারা সাধারন কর্মীদের কি ভাবে বোঝাচ্ছেন, বাংলাদেশের প্রতিটি বড় রাজনৈতিক দলই এখন এই সমস্ত কিছুর মর্মোদ্ধার করার চেষ্টা চালাচ্ছে। ...

পাক বিদেশ মন্ত্রীর বাংলাদেশ সফর ঃ দ্বি-পাক্ষিক সম্পর্ক প্রসঙ্গে

সম্প্রতি পাকিস্তানের বিদেশ মন্ত্রী হিনা রাব্বানি খার বাংলাদেশ ঘুরে গেলেন। রাজধানী ঢাকায় তাঁর সফরের মেয়াদ ছিল মাত্র পাঁচ ঘন্টা। কিন্তু এরই মধ্যে তাঁকে এমন একটি বাস্তবের মুখোমুখি হতে হল, এতদিন পাকিস্তান যা লুকিয়ে রাখতে চেয়েছে, বাংলাদেশ চায়নি। তাঁকে বিস্মিত করে বাংলাদেশের বিদেশ মন্ত্রী দীপু মনি পাকিস্তানি সেনাদের হাতে ১৯৭১ সালের গ্ণ হত্যার প্রসঙ্গ তুলে জানিয়ে দেন, এ\'ব্যাপারে বাংলাদেশ এখনো ইসলামাবাদের কাছ থেকে সরকারী ভাবে ক্ষমা প্রার্থনার অপেক্ষায় রয়েছে। তিনি এ\'কথাও বলেন যে, তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের বাঙ্গালিদের হত্যা করে উচিৎ \'শিক্ষা\' দেবার যে সরকারি নীতির ফলে ঐ অপরাধ ঘটান হয়েছিল, সে ব্যাপারে পাকিস্তানের পক্ষ থেকে শুধু মাত্র দুঃখ প্রকাশে বাংলাদেশ সন্তুষ্ট হবেনা। ...

তদারকি সরকারের দাবি ঃ একটি রাজনৈতিক সংকট

দীর্ঘ রক্তক্ষয়ী সংগ্রাম, বহু অত্যাচার ও জীবন দানের শেষে বাংলাদেশের মানুষ পাকিস্তানি সেনাদের পরাস্ত করে তাদের হাত থেকে দেশকে মুক্ত করেছিলেন। পাকিস্তানের সাথে সব সম্পর্ক ছিন্ন করে ১৯৭১ সালের ১৬ই ডিসেম্বর অবশেষে বাংলাদেশ একটি স্বাধীন, সার্বভৌম রাষ্ট্র হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে। নতুন রাষ্ট্রের প্রথম সংসদীয় সরকার গঠিত হয় ১৯৭৩ সালে, নির্বাচনের পরে। তার পর থেকে গণতান্ত্রিক, অগণতান্ত্রিক--অনেক সরকারের হাতেই বিভিন্ন সময়ে দেশের শাসন ভার থেকেছে। ...

A reckoning of reprisals

If the war crimes trials do not reach a conclusion before the next general election in Bangladesh, then it might for ever remain unresolved

Thriving Terror Network in Bangladesh

It is generally believed that the radical Islamic groups in Bangladesh are locally organized and not like the Arabs and Pakistanis in terms of Islamic fervor or Jehadi spirit as the Bangladeshi groups are far less supported, organized, and ideologically committed. But the arrests in 2010 of Sheikh Obaidullah alias Abu Zafar and Maulana Mohammad Mansur Ali, two high profile cadres of Pakistan based militant group Lashkar-e-Taiba (LeT) give a lie to such assumptions. Their disclosures during interrogation bear irrefutable evidence of the presence of international terrorist groups in Bangladesh.

Law Catches Up With Mir Quasem Ali

Al Badr Commander Mir Quasem Ali whose name became synonymous with genocide, rape, looting and arson in Chittagong during the liberation war in 1971, is an influential central leader of Bangladesh Jamaat-e-Islami (JEI), being a member of its 15 member Central Executive Committee. He is the main brain behind JEI’s finances and played a crucial role in financially strengthening the organization after its rehabilitation by the former Bangladesh military ruler General Ziaur Rahman in 1976. Earlier, after the liberation of Bangladesh in 1971, JEI and other militant Islamic organizations which had collaborated with the occupation forces of Pakistan were banned by the founding father of Bangladesh Sheikh Mujibur Rahman. Quasem Ali was arrested last June for his role in perpetrating crimes against humanity during the country\'s 1971 liberation war

Series of Hartals and public held hostage

People of the country are depressed and frustrated. They are held hostage by the opposition BNP and its anti-liberation ally Jamaat.

রানা প্লাজা দুর্ঘটনা ও হেফাজতের ভূমিকা

এপ্রিল মাসের ২৪ তারিখে সাভারের ভেঙ্গে পড়া রানা প্লাজার ধ্বংসস্তূপ থেকে এখনও মৃতদেহ উদ্ধারের কাজ চলছে। এখনও অনেকে রয়েছেন নিখোঁজ, তবুও তাঁদের স্বজনরা এখনও আশা ছাড়েননি