Bangladesh
আতংক সৃষ্টি ও প্রচার পেতেই পুলিশের ওপর হামলা চালায় জঙ্গিরা

Bangladesh Live News | @banglalivenews | 21 Jan 2020

Terrorists carried out attack on police create panic

Photo courtesy: Amirul Momenin

নিজস্ব প্রতিনিধি, ঢাকা, জানুয়ারি ২১ : পুলিশের ওপর গত বছর আচমকা যে হামলাগুলো হয়েছিল, তার মূল উদ্দেশ্য ছিল আতঙ্ক সৃষ্টি ও প্রচার পাওয়া। ঢাকা মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার ও কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম এ কথা জানান। তিনি বলেন, পুলিশের ওপর হামলা প্রতীকী হলেও এর মূল উদ্দেশ্য আতঙ্ক সৃষ্টি করা। আর যেহেতু জঙ্গিবাদের নেটওয়ার্ক ভেঙে দিতে পুলিশের তৎপরতা বেশি, তাই আতঙ্ক তৈরিতে পুলিশের ওপর টার্গেট করে হামলার চেষ্টা করেছে জঙ্গিরা।

মনিরুল ইসলাম বলেন, জঙ্গিরা সন্ত্রাসী কার্যক্রমের মাধ্যমে চায় প্রচার। পুলিশের ওপর হামলা করলে প্রচারটা বেশি পাওয়া যায়। তাছাড়া পুলিশের ওপর হামলা করলে জনমনে ভয়-ভীতিটা বেশি সৃষ্টি হয়। কারণ পুলিশ জনগণকে নিরাপত্তা দেবে। সেখানে পুলিশেই যদি অরক্ষিত হয় তাহলে জনগণকে কীভাবে নিরাপত্তা দেবে। এই চিন্তা থেকে তারা পুলিশকে হামলার টার্গেট করে। তাছাড়া হলি আর্টিসান হামলার পরে পুলিশের সক্ষমতা বেড়েছে। জঙ্গিদের যে নেটওয়ার্কিং গড়ে উঠেছিল তা বিপর্যস্ত-দুর্বল করে দেয়ার কাজটি পুলিশই করেছিল। সেজন্য তারা পুলিশকেই টার্গেট করেছে।


গত বছর রাজধানীর গুলিস্তান, মালিবাগ, সাইন্সল্যাব, পল্টন ও খামারবাড়িতে পুলিশের ওপর চালানো হামলার সাথে জড়িত দুজনকে রোববার রাতে আটকের পর সোমবার দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন মনিরুল। ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। রোববার যাদের গ্রেফতার করা হয়েছে তারা হলেন, মো. জামাল উদ্দিন রফিক ও মো. আনোয়ার হোসেন।


মনিরুল বলেন, গত বছর যে হামলাগুলো হয়েছে তার প্রত্যেকটির মূলপরিকল্পনাকারী রফিক। তিনি নিজে চারটিতে সরাসরি অংশ নেন। আর আনোয়ার সবগুলোতে নেপথ্যে থেকে সহযোগিতা করেন এবং একটিতে সরাসরি অংশ নেন।


মনিরুল ইসলাম বলেন, জামাল উদ্দিন রফিক পেশায় ইঞ্জিনিয়ার। তিনি চাকরির পাশাপাশি আউটসোর্সিংয়ের কাজ করেছেন। সেখান থেকে অর্জিত আয়ে ছোট সেল গঠন করে জঙ্গিবাদী কার্যক্রমের রসদ সংগ্রহে ব্যয় করেন। কুয়েটে পড়াশোনার সময় প্রথমে আনসার আল ইসলামের পক্ষে লেখালেখি করেছে। পরে প্রকৃত জেহাদি মনে করে নব্য জেএমবিতে যোগ দেয়। এরপর সে তার ভাই রুমিকেও প্রভাবিত করে জঙ্গিবাদে জড়ায়। এরআগে যে দুজন গ্রেফতার হয়েছে তারাও রফিকের সার্কেলের ইঞ্জিনিয়ার।




Video of the day
More Bangladesh News
Recent Photos and Videos

Web Statistics