Finance
করোনায় কাঁকড়া-কুঁচিয়া রফতানি বন্ধ, বিপাকে ব্যবসায়ীরা

Bangladesh Live News | @banglalivenews | 15 Feb 2020

Coronavirus: Export of crab leaves businessmen in trouble

Photo courtesy: Pixabay

নিজস্ব প্রতিনিধি, ঢাকা, ফেব্রুয়ারি ১৫ : খুলনার পাইকগাছার কাঁকড়া-কুঁচিয়া ব্যবসায় চীনের করোনাভাইরাসের প্রভাব পড়েছে। বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়েছে প্রায় সকল ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান। গত ২০ দিন রফতানি বন্ধ থাকায় মারা যাচ্ছে মজুতকৃত কাঁকড়া ও কুঁচিয়া।

কাঁকড়া ও কুঁচিয়ার ব্যবসায় ধস নামায় এর প্রভাব পড়েছে অন্যান্য ব্যবসায়। ফলে বিপুল পরিমাণ আর্থিক ক্ষতির আশঙ্কা করছেন এর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট হাজার হাজার মানুষ। বর্তমানে কাঁকড়া ও কুঁচিয়া নিয়ে মহা বিপাকে পড়েছেন স্থানীয় ক্ষুদ্র ও সরবরাহকারী ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান।


বর্তমান পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছে মৎস্য দফতর। সংশিষ্টরা বলছেন, এখন যে অবস্থা তাতে কাঁকড়া-কুঁচিয়া রফতানির বিকল্প বাজার খোঁজার বিকল্প নেই। তবে চীন অতি সম্প্রতি আশ্বস্ত করায় পরিস্থিতি দ্রুত স্বাভাবিক হতে পারে বলে ধারণা করছেন সংশ্লিষ্ট মৎস্য দফতরের কর্মকর্তারা।


সূত্র মতে, সুন্দরবন সংলগ্ন এলাকা হওয়ায় অত্র এলাকা চিংড়ি, কাঁকড়া ও কুঁচিয়া উৎপাদনের জন্য অত্যন্ত সমৃদ্ধ। এখানকার উৎপাদিত কাঁকড়া সুস্বাদু হওয়ায় বিদেশে প্রচুর চাহিদা রয়েছে।


উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা পবিত্র কুমার দাস জানান, অত্র উপজেলায় ২০০ হেক্টরে শুধুমাত্র কাঁকড়া এবং ১৭ হাজার হেক্টর মিশ্র ঘের থেকে কাঁকড়া উৎপাদন হয়ে থাকে। অনুরূপভাবে এসব উৎস থেকে কুচিয়াও উৎপাদন হয়।


উপজেলা মৎস্য দফতরের সূত্রমতে, এ এলাকায় গত বছর ৪ হাজার ১০০ টন কাঁকড়া ও ৩০০ টন কুঁচিয়া উৎপাদন হয়। উৎপাদিত কাঁকড়া ও কুঁচিয়া চীন, থাইল্যান্ড, মালয়েশিয়া ও হংকংসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে রফতানি হয়ে থাকে। যার মধ্যে ৯০ ভাগ কাঁকড়া শুধুমাত্র চীনেই রফতানি হয়। মাস খানেক আগে চীনে করোনাভাইরাস দেখা দেওয়ায় গত ২৫ জানুয়ারি থেকে বাংলাদেশ থেকে চীনে কাঁকড়া ও কুঁচিয়া রফতানি বন্ধ হয়ে যায়। ফলে বিপাকে পড়েন এই এলাকার সরবরাহকারী, ব্যবসায়ী, খুচরা বিক্রেতা ও উৎপাদনকারী চাষিরা।


২০ দিন রফতানি বন্ধ থাকায় ধস নেমেছে কাঁকড়া ও কুঁচিয়া ব্যবসায়। অধিকাংশ ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করে অলস সময় পার করছেন ব্যবসায়ীরা। কিছু কিছু প্রতিষ্ঠান চালু রাখলেও সরবরাহ ও কেনাবেচা নেই বললেই চলে। দামও নেমে এসেছে কয়েকগুণ।




Video of the day
More Finance News
Recent Photos and Videos

Web Statistics