Bangladesh
১৫ আগস্টের ঘাতকদের বিদেশে চাকরি দেয়া হয়েছিল : শেখ হাসিনা

Bangladesh Live News | @banglalivenews | 14 Aug 2020

My family's killers were handed high profile jobs, says PM Hasina

Photo courtesy: ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুসহ নিহতদের কয়েকজন (ফাইল ছবি)।

নিজস্ব প্রতিনিধি, ঢাকা, ১৪ আগস্ট ২০২০ : বঙ্গবন্ধুসহ ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট শহীদদের স্মরণ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, নারী, শিশু ও রাষ্ট্রপতি হত্যাকারীদের বিদেশ ও বিভিন্ন দূতাবাসে চাকরি দিয়ে পুরস্কৃত করা হযয়েছিল।

শুক্রবার মুজিব বর্ষ উপলক্ষে ইতোমধ্যে সম্পন্ন ৫০ হাজার বার কোরআন খতম এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে অনুষ্ঠিত মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠানে ভিডিও করফারেন্সে যুক্ত হয়ে তিনি এসব কথা বলেন। বিভিন্ন এতিমখানা ও সরকারি শিশুপল্লী থেকে শিশুরা মোনাজাতে অংশগ্রহণ নেয়।
শেখ হাসিনা বলেন, আমার মা (শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব) এতিম ছিলেন। মাত্র তিন বছর বয়সে তার মা তাকে রেখে যান। এরপর পাঁচ বছর বয়সে বাবাকে হারান। এরপর তিনি দাদার কাছে থাকেন। সাত বছর বয়সে দাদাও মারা যান। এরপর আমার দাদি আমার মাকে কোলে তুলে নিয়েছিলেন। পরে আমার বাবার সাথে বিয়ে দেন। তখন তার বয়স খুব কম ছিল। আমি আমার মায়ের বড় সন্তান। মায়ের কষ্ট, তার বাবা-মা হারানোর ব্যথা আমি বুঝতাম।
তিনি বলেন, আমার বাবা ছিলেন বাংলাদেশের প্রথম রাষ্ট্রপতি। যখন তিনি মৃত্যুবরণ করেন তখনও তিনি রাষ্ট্রপতি। আমার মা বেগম শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব ছায়ার মতো বাবার পাশে ছিলেন। স্বাধীনতা সংগ্রামে যখন আমার বাবা তার জীবন উৎসর্গ করেছিলেন তখন আমার মা তার পাশাপাশি ছিলেন। পঁচাত্তরের ঘাতকরা আমার বাবা-মা এবং পরিবারের সকল সদস্যকে হত্যার পর আমার আত্মীয়-স্বজনের বাসায় বাসায় অভিযান চালিয়ে হত্যাযজ্ঞ চালায়। ১৫ আগস্ট এইভাবে তারা আমাদের পরিবারের ওপর নারকীয় হত্যাযজ্ঞ চালায়।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি এবং আমার ছোট বোন রেহানা বিদেশে ছিলাম। ৬ বছর আমাদের দেশে আসতে দেয়া হয়নি। আমার বাবার লাশ দেখতে পারিনি, কবর জিয়ারত করতে পারিনি। আমাদেরকে বাইরে পড়ে থাকতে হয়েছিল। এতিম হয়ে সর্বস্ব হারিয়ে বিদেশের মাটিতে রিফিউজি হয়ে পড়ে থাকা কী যে কষ্ট এটা যারা আমাদের মত হয়েছিল একমাত্র তারাই জানে। ১৯৮১ সালে আমি দেশে ফিরে আসি। স্বাভাবিকভাবেই আমার চিন্তা ছিল আমার বাবা এ দেশের মানুষের জন্য সারাজীবন কষ্ট করেছেন, জেল খেটেছেন, অত্যাচার নির্যাতন সহ্য করেছেন। দেশে আশার পর ভাবলাম মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনের জন্য কিছু করে যাব। একটা হত্যাকাণ্ড হোটেলে হয়েছিল, তারা বিচার চাইতে পারে। কিন্তু  আমরা ১৫ আগস্ট বাবা-মাসহ সবাইকে হারালেও আমাদের মামলা করা বা বিচার চাওয়ার অধিকার ছিল না।




Video of the day
More Bangladesh News
Recent Photos and Videos

Web Statistics